Tag: মুজিবের জীবনাদর্শ

Read More

শোষিত মানুষের মুক্তির পথ – মুজিববাদ

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বিশ্বের শোষিত মানুষের জন্য সংগ্রাম করবে। বঙ্গবন্ধুর মহান আদর্শ বাঙালি জাতির মুক্তির পথই নয়, এটা শোষিত মানুষের মুক্তির পথ। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ভৈরবে এক জনসভায় এ কথা ঘোষণা […]

Read More

ধর্মনিরপেক্ষতা মানে কী????

মহানবী  (সা.)বলেন ‘কোনো মুসলমান যদি ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের অধিকার ক্ষুন্ন করে কিংবা তাদের ওপর জুলুম করে, তবে কেয়ামতের দিন আমি মুহাম্মদ ওই মুসলমানের বিরুদ্ধে আল্লাহর আদালতে লড়াই করব।

Read More

বঙ্গবন্ধুর জেলজীবন ও সংসার

ডঃআতিউর রহমানঃ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজি বুর রহমান ‘কারাগারের রোজনামচা’ লিখতে শুরু করেন ১৯৬৬ সালে। ১৯৬৬ সালের ২ জুন তা শুরু হয়ে শেষ হয়েছে ১৯৬৭ সালের ২২ জুন।

Read More

খোকা হতে একটি জাতির ত্রাণকর্তা

নিউটন মজুমদারঃযাঁর জন্ম না হলে হয়তো পাকিস্তান নামক শোষণ যন্ত্রের কবল হতে মুক্তি পেতো না এ জাতি, পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশ নামক একটা স্বাধীন ভূখণ্ডের অভ্যুদয় হতো না কোনদিন

Read More

বঙ্গবন্ধুর ভাষ্যে মুজিববাদ

আমার উপরোক্ত মতবাদকে অনেকে বলছে ‘মুজিববাদ’। এ দেশের লেখক, সাহিত্যিক কিংবা ঐতিহাসিকগণ আমার চিন্তাধারার কি নামকরণ করবেন সেটা তাঁদের ব্যাপার, আমার নয়।

Read More

মিয়ানওয়ালি কারাগারে শেখ মুজিবের সংগ্রাম

৩১ মার্চ বঙ্গবন্ধু কে গোপনে সামরিক বিমানে করে লাহোরের ৮০ মাইল দূরের লায়ালপুর শহরের মিনওয়ালি কারাগারে বন্দী করে রাখা হয়

Read More

মুজিব – অন্ধকার সময়েরর এক অগ্নিস্নাত চরিত্র..

নিকোলাস ফ্লামেলের পরশপাথরের ছোয়ায় যেমন ধাতু স্বর্ণ হয়েছিল। আব্রাহাম ইলিয়েৎসারের অমৃত সুধা অথবা হলি গ্রেইল পেয়ালায় পানি পান করে যেমন অমরত্ব লাভ করা যেত তেমনি বঙ্গবন্ধু হচ্ছেন সেই পরশপাথর যার ছোয়ায় সৃষ্টি হয়েছে বাংলাদেশ।

Read More

“আমার আবার জন্মোৎসব কিরে? আয় আয় আমার কাছে আয়”।

বঙ্গবন্ধু জন্মদিন পালন তত্ত্বে কখনো তেমন বিশ্বাসী ছিলেন না।বঙ্গবন্ধু তার জীবনের ৪৬২৮ দিন কারাগারে অন্তরীত ছিলেন,১৮ বার জেলে গিয়েছিলেন।৩১,৩২ ৪০,৪১,৪২,৪৩,৪৮,৪৯তম জন্মদিন কারাগারে কাটিয়েছেন।

Read More

দেশে দেশে বঙ্গবন্ধু

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামী জীবন কে গুরুত্ব দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র,ভারত, ফ্রান্স, তুরস্ক তার স্মরণে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে।জাতির জনকের নামে আমরা বাংলাদেশে অসংখ্য স্থাপনা দেখতে পাই,আমাদের দেশের প্রেক্ষপটে অত্যান্ত সাধারণ ঘটনা ।কিন্তু বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বঙ্গবন্ধুর নামে বিভিন্ন স্থাপনা, জাদুঘর, ভাস্কর্য, রাস্তা দেখতে পাওয়া যায়। এটা প্রকৃত অর্থে বঙ্গবন্ধুর বৈশ্বিক গ্রহণযোগ্যতার স্বরূপ।বঙ্গবন্ধু জীবিত অবস্থায় দেশের সীমা পরিসীমা ছড়িয়ে আন্তজার্তিক পরিমণ্ডলে নিজের অবস্থান যথেষ্ট শক্তিশালী ভাবমূর্তি গড়তে সক্ষম হয়েছিলেন।